মেনু নির্বাচন করুন

"বাঘের গর্জন,সমৃদ্ধি ও অর্জন"

ডাউনলোড ব্র্যান্ড বুক

ছবিতে জেলা ব্র্যান্ডিং


বিস্তারিত


সুন্দরবনের প্রধান আকর্ষণ রয়েল বেঙ্গল টাইগার। এছাড়া, সুন্দরবনের সবুজ সৌন্দর্য্য, লাল সবুজের বাংলাদেশ, সমৃদ্ধ খুলনার প্রতীক চিংড়ি ও জাহাজ নির্মাণ শিল্প লোগোতে অন্যতম উপজীব্য হয়েছে।খুলনাকে সুন্দরবনের প্রবেশদ্বার বলা যেতে পারে। পর্যটকদের প্রধান আকর্ষন বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ বিশ্বের সর্ববৃহৎ ম্যানগ্রোভ বন সুন্দরবন। সুন্দরবনের প্রধান আকর্ষন রয়েল বেঙ্গল টাইগার, যেটি বাঙালি জাতির বীরত্বেরও প্রতীক বটে। খুলনার অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির অন্যতম বিষয় চিংড়ি শিল্প যা ‘হোয়াইট গোল্ড’ নামেও খ্যাত। বাংলাদেশ থেকে রপ্তানীকৃত মোট চিংড়ির সিংহভাগই খুলনার বিভিন্ন চিংড়ি ব্যবসায়ীরাই রপ্তানী করে থাকেন। এছাড়া জাহাজ নির্মাণ শিল্প খুলনায় একটি অনন্য শিল্প, বিশেষত খুলনা শিপইয়ার্ডে অত্যাধুনিক ত্রিমাত্রিক নৌ যুদ্ধ জাহাজসহ বিভিন্ন ধরনের জাহাজ নির্মাণ হচ্ছে। পদ্মা সেতু দৃশ্যমান হওয়ার সাথে সাথে খুলনার যে অপার শিল্প সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচন হতে চলেছে সেটিকে উপজীব্য করে খুলনা জেলা ব্রান্ডিং লোগো ও ট্যাগলাইন নির্ধারণ করা হয়েছ। ‌

জেলা ব্রান্ডিং এর অংশ হিসেবে জেলার ইতিহাস,ঐতিহ্য,শিল্প,সংস্কৃতি,মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত স্থান,প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন,বিখ্যাত ব্যাক্তিদের স্মৃতিময় স্থানসমূহের সাথে পরিচিতির লক্ষ্যে জেলা প্রশাসন খুলনার বিশেষ উদ্ভাবনী উদ্যোগ “আনন্দ ভ্রমনে,শিকড়ের সন্ধানে…” বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন    আনন্দ ভ্রমণে শিকড়ের সন্ধানে


জেলা ব্র্যান্ডিং এর কর্মপরিকল্পনা


জেলা ব্র্যান্ডিং বাস্তবায়নের জন্য তিন বছর মেয়াদী নিন্মোক্ত কর্ম-পরিকল্পনা অনুসরণ করা হচ্ছে:

  • স্বল্পমেয়াদ:০৬মাস।
  • মধ্যমেয়াদ:০১বছর, ০৬মাস।
  • দীর্ঘমেয়াদ: ৩বছর।

কর্ম-পরিকল্পনা:

 

  1. জেলার সকল অংশীজনের সহায়তায় একজন জেলা ফোকাল পয়েন্ট নির্ধারণ এবং বিভিন্ন কমিটি ও উপ-কমিটিগঠন।
  2. পর্যটনের বর্তমান অবস্থা বিশ্লেষণ এবং পর্যটন ক্ষেত্রগুলোর শক্তি, দুর্বলতার, সুযোগ এবং ঝুঁকি চিহ্নিতকরণ।
  3. সুন্দরবনসহ অন্যান্য পর্যটনস্থানগুলোতে হোটেল/অবকাশকেন্দ্র স্থাপন এবং সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ।
  4. জেলার ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতি ও মূল্যবোধকে ব্র্যান্ডিং এর সাথে সম্পৃক্তকরণ।
  5. ব্র্যান্ড বুক প্রণয়ন এবং ব্র্যান্ডিং সুভেনির তৈরি।
  6. জেলা বাতায়নে জেলা ব্র্যান্ডিং ওয়েবপেইজ তৈরি।
  7. পর্যটন কেন্দ্রসমূহে স্বাস্থ্য সুবিধা নিশ্চিতকরণ এবং সুন্দরবন পর্যটন কেন্দ্রে পাবলিক টয়লেট স্থাপন।
  8. রাস্তাঘাটের সংস্কার।
  9. স্থানীয় ও জাতীয় পত্রিকায় ব্র্যান্ডিং বিষয়ে লেখা প্রকাশ, লিফলেট, বিলবোর্ড তৈরি এবং জেলা ব্র্যান্ডিং এর উদ্দেশ্যে সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার আয়োজন।




Share with :

Facebook Twitter